প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আবারও ‘বিপুল ভোটে’ জয়ী পুতিন

Putin

প্রাথমিক ফলাফলে দেখা গেছে, পুতিন প্রায় ৮৭ শতাংশ ভোট পেয়েছেন, যা সোভিয়েত-পরবর্তী রাশিয়ার ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের মাধ্যমে ক্ষমতায় তার দৃঢ়তা দৃঢ় করেছেন, যা গণতান্ত্রিক বৈধতার অভাবের কারণে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়েছে।

নির্বাচনোত্তর এক সংবাদ সম্মেলনে পুতিন এই ফলাফলকে পশ্চিমাদের অগ্রাহ্য করে ইউক্রেন আক্রমণের সিদ্ধান্তের প্রতিফলন হিসেবে তুলে ধরেন।

“তারা আমাদের কে বা যতই ভয় দেখাতে চায় না কেন, তারা আমাদের যতই দমন করতে চায় না কেন, আমাদের ইচ্ছা, আমাদের চেতনা- ইতিহাসে কেউ এমন কিছু করতে পারেনি,” সোমবার সকালে তার নির্বাচনী প্রচারণার সদর দফতর থেকে দেওয়া এক ভাষণে বলেন পুতিন।

“এটি এখন কাজ করেনি এবং ভবিষ্যতেও কাজ করবে না। কখনই না।

রোববার সর্বশেষ ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই প্রাথমিক জরিপ সবার প্রত্যাশিত সিদ্ধান্তের দিকে ইঙ্গিত করে: পুতিন তার প্রায় সিকি শতাব্দীর শাসনকে আরও ছয় বছরের জন্য প্রসারিত করবেন।

রাশিয়ার সেন্ট্রাল ইলেকশন কমিশনের মতে, তিনি প্রায় ৮৭ শতাংশ ভোট পেয়েছেন এবং প্রায় ৬০ শতাংশ ভোট গণনা করা হয়েছে। এর ফলে ৭১ বছর বয়সী পুতিন জোসেফ স্ট্যালিনকে ছাড়িয়ে যাবেন এবং ২০০ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে রাশিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকা নেতা হবেন।

কমিউনিস্ট প্রার্থী নিকোলাই খারিতোনভ ৪ শতাংশের কম ভোট পেয়ে দ্বিতীয়, নবাগত ভ্লাদিস্লাভ দাভানকভ তৃতীয় এবং উগ্র জাতীয়তাবাদী লিওনিদ স্লুতস্কি চতুর্থ হয়েছেন।

নির্বাচন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার সময় দেশব্যাপী ভোটদানের হার ছিল ৭৪.২২ শতাংশ, যা ২০১৮ সালের ৬৭.৫ শতাংশকে ছাড়িয়ে গেছে।

পুতিনের বিজয় নিয়ে কখনোই সন্দেহ ছিল না, কারণ তার সমালোচকরা বেশিরভাগই কারাগারে, নির্বাসনে বা মৃত, যখন তার নেতৃত্বের প্রকাশ্য সমালোচনা দমন করা হয়েছে।

রুশ নেতার সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যালেক্সি নাভালনি গত মাসে আর্কটিক কারাগারে মারা যান।

কেজিবির সাবেক লেফটেন্যান্ট কর্নেল পুতিন, যিনি ১৯৯৯ সালে প্রথম ক্ষমতায় এসেছিলেন, তার জন্য এই ফলাফলের উদ্দেশ্য পশ্চিমাদের বোঝানো যে, এর নেতাদের আগামী আরও অনেক বছর ধরে যুদ্ধে বা শান্তিতে একটি সাহসী রাশিয়াকে গণনা করতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্র বলছে, এই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়নি।

হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের মুখপাত্র বলেন, ‘পুতিন যেভাবে রাজনৈতিক বিরোধীদের কারাবন্দি করেছেন এবং অন্যদের তার বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা থেকে বিরত রেখেছেন, তাতে অবশ্যই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়নি।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এক্স-এ এক পোস্টে বলেছেন, ‘এই ভোট অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নয়।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, ‘এই নির্বাচনে জালিয়াতির কোনো বৈধতা নেই এবং এর কোনো বৈধতা থাকতে পারে না।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের সবচেয়ে প্রাণঘাতী সংঘাত ইউক্রেনে ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে পুতিনের পূর্ণ মাত্রায় আগ্রাসনের দুই বছরেরও বেশি সময় পর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো।

রোববার পুতিনের হাজার হাজার বিরোধীরা তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে, যদিও রাশিয়ার ১১ কোটি ৪০ লাখ ভোটারের মধ্যে কতজন বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে তার কোনো স্বতন্ত্র হিসাব পাওয়া যায়নি।

নাভালনির সমর্থকরা রুশদের ‘পুতিনের বিরুদ্ধে দুপুরে’ বিক্ষোভে নামার আহ্বান জানিয়েছিল।

সংবাদ সম্মেলনে পুতিন মৃত্যুর পর প্রথমবারের মতো নাভালনির নাম উল্লেখ করে বলেন, পশ্চিমা দেশগুলোতে বন্দিদের বিনিময়ে তাকে মুক্তি দেওয়ার প্রস্তাবকে তিনি সমর্থন করেছেন।

“যে লোকটি আমার সঙ্গে কথা বলছিলেন তিনি তার বাক্য শেষ করেননি এবং আমি বলি ‘আমি একমত’, বলেন পুতিন।

সাবেক রুশ প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন পদত্যাগ করলে পুতিনকে প্রথম ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে মনোনীত করা হয়। এরপর ২০০০ সালের মার্চে প্রথম এবং ২০০৪ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হন তিনি।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে টানা দুই মেয়াদে দায়িত্ব পালনের সাংবিধানিক নিষেধাজ্ঞা এড়াতে ২০০৮ সালে ফের প্রধানমন্ত্রী হন পুতিন।

কিন্তু ২০১২ সালে তিনি আবার প্রেসিডেন্ট পদে ফিরে আসেন এবং ২০১৮ সালে চতুর্থবারের মতো জয়ী হন।

সর্বশেষ সংবাদ

Calendar

May 2024
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031  

Related

আলোকবালী
আলোকবালী.কম একটি অনলাইন সংবাদপত্র যা শিক্ষা, চাকরি, প্রযুক্তি এবং আরও অনেক কিছু কভার করে। আলোকবালী.কম এমন একটি ওয়েবসাইট যা আপনি সর্বশেষ সংবাদ পেতে, নতুন জিনিস শিখতে, দরকারী টিপস সন্ধান করতে বা কিছু মজা করতে পরিদর্শন করতে পারেন। আলোকবালী.কম এমন একটি ওয়েবসাইট যা আপনি বিশ্বাস করতে এবং উপভোগ করতে পারেন।
অনুসরণ করুন

আমরা আপনার ডেটার সুরক্ষা সম্পর্কে যত্নশীল। আমাদের গোপনীয়তা নীতি পড়ুন।

কপিরাইট © ২০২৪ আলোকবালী। সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। সম্পাদক ও প্রকাশক: আওলাদ হোসেন।