পিএসজি প্লেয়ার রেটিং: বার্সেলোনার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রত্যাবর্তনে এমবাপ্পের গোল।

Alokbali

ফরাসি আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রা লিগ ওয়ান জায়ান্টদের দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনে নেতৃত্ব দিতে এবং তাদের দলকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে পাঠাতে সহায়তা করেছিল

উসমান দেম্বেলে ও কিলিয়ান এমবাপ্পের গোলে বার্সেলোনার হৃদয় ভেঙে দিয়েছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইকে (পিএসজি) চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে পৌঁছে দিয়েছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। সাবেক বার্সা উইঙ্গার একবার গোল করেন এবং একটি পেনাল্টি জেতেন এবং এমবাপ্পের জোড়া গোলে ৪-১ ব্যবধানে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে জয় পায় তারা।

স্বাগতিক দর্শকদের অবিরাম ঠাট্টা-বিদ্রুপ এবং একটি হতাশাজনক সূচনা কাটিয়ে তার দলকে এক গোলে পিছিয়ে পড়তে দেখেছিল যখন লামিন ইয়ামাল নুনো মেন্দেসকে কাটিয়ে রাফিনহাকে চাবুক মেরেছিলেন এবং ঘরের দিকে ডাইভার্ট করতে রাফিনহাকে চাবুক মেরেছিলেন।

তবে ম্যাচটি পিএসজির পক্ষে মোড় নেয়, যখন রোনাল্ড আরাউজো বক্সের ঠিক বাইরে ব্র্যাডলি বারকোলাকে নামানোর জন্য মাঠ ছাড়েন। ১০ মিনিট পর সমতায় ফেরে ফরাসি দল, বিস্ময়, বিস্ময়, উসমান দেম্বেলে, যিনি অর্ধ জুড়ে ক্রমাগত ঠাট্টা-তামাশার মধ্যে সমতা ফেরান।

দ্বিতীয়ার্ধে পিএসজির আধিপত্য বাড়তে থাকায় বার্সা যেন উন্মোচিত হয়। প্রথমার্ধের ১০ মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে বক্সের বাইরে থেকে বটম কর্নারে বল জালে জড়াতে ভিতিনহাকে এগিয়ে দেন স্বাগতিকরা। এর কয়েক মিনিটের মধ্যেই বার্সেলোনা কোচ জাভি মাঠ ছাড়লে জোয়াও কানসেলো বক্সের মধ্যে দেম্বেলেকে ফাউল করলে পেনাল্টি কিক উঁচু করে জালে পাঠিয়ে ব্যবধান ৩-১ করেন কিলিয়ান এমবাপ্পে।

অদ্ভুতভাবে, বার্সা অর্ধের পরে কিছু যথাযথ লড়াই দেখিয়েছিল কারণ রবার্ট লেভানদোভস্কি জিয়ানলুইজি দোন্নারুম্মাকে একটি দুর্দান্ত সেভ করতে বাধ্য করেছিলেন এবং রাফিনহার বেশ কয়েকটি ভাল প্রচেষ্টা ছিল তবে তাদের দুর্দশা আরও বাড়িয়ে তোলে এমবাপ্পে যিনি পিএসজির দেরিতে পাল্টা আক্রমণের পরে দ্বিতীয়বারের মতো শেষ করেছিলেন। শেষ দিকে লুইস এনরিকে দারুণ প্রত্যাবর্তনের পথে ছিলেন পিএসজি, ২০১৭ সালে বার্সা কোচ থাকাকালীন সেই বিখ্যাত রেমোনতাদার ভূত তাড়ানো।

গোলরক্ষক ও ডিফেন্স।

জিয়ানলুইজি দোন্নারুম্মা (৭/১০):

দ্বিতীয়ার্ধে লেভানদোভস্কিকে বাইরে রাখার জন্য একটি দুর্দান্ত সেভ করেছিলেন এবং পরে রাফিনহাকে বাইরে রেখেছিলেন।

আশরাফ হাকিমি (৭/১০):

প্রথমার্ধে আক্রমণে দন্তহীন থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে আরও কিছুটা প্রাণবন্ত হয়ে ওঠেন এবং ভিতিনহাকে পরাস্ত করার আগে একটি মারাত্মক শট বাঁচিয়ে দেন।

মারকুইনহোস (৭/১০):

কিছু মূল ছাড়পত্র দিয়ে পিছনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল এবং যখন তারা পিছন থেকে তৈরি করেছিল তখন বলটিতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছিল।

লুকাস হার্নান্দেজ (৬/১০):

রবার্ট লেভানদোভস্কিকে শান্ত রাখতে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ট্যাকল করেছেন।

নুনো মেন্ডেস (৫/১০):

বার্সার প্রথম সঠিক আক্রমণে প্রথম গোলে বিধ্বস্ত করেন ইয়ামাল।

সর্বশেষ সংবাদ

Calendar

May 2024
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031  

Related

আলোকবালী
আলোকবালী.কম একটি অনলাইন সংবাদপত্র যা শিক্ষা, চাকরি, প্রযুক্তি এবং আরও অনেক কিছু কভার করে। আলোকবালী.কম এমন একটি ওয়েবসাইট যা আপনি সর্বশেষ সংবাদ পেতে, নতুন জিনিস শিখতে, দরকারী টিপস সন্ধান করতে বা কিছু মজা করতে পরিদর্শন করতে পারেন। আলোকবালী.কম এমন একটি ওয়েবসাইট যা আপনি বিশ্বাস করতে এবং উপভোগ করতে পারেন।
অনুসরণ করুন

আমরা আপনার ডেটার সুরক্ষা সম্পর্কে যত্নশীল। আমাদের গোপনীয়তা নীতি পড়ুন।

কপিরাইট © ২০২৪ আলোকবালী। সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। সম্পাদক ও প্রকাশক: আওলাদ হোসেন।